পৃথিবীর সফলতম ব্যাক্তিদের নিয়ে কিছু কথা

পৃথিবীতে অনেক মানুষ আছে যারা জীবনে খুব কঠিন সময় পার করেছেন। জীবনের শুরুতে একাধিক বার ব্যার্থ হয়েছেন। ব্যার্থ  হয়ে তারা বসে থাকেন নি আবার ও জীবন সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়েছেন কিন্তু আবার ও ব্যার্থ  হয়েছেন আর এই সকল ব্যার্থ ব্যাক্তিরাই ব্যার্থ হতে হতে একদিন সফলতার  চরম শিখরে পৌঁছে গেছেন। আজকে আমরা এমন সব ব্যাক্তির কথা জানব যারা বার বার ব্যার্থ  হওয়ার পর ও জীবনে অবিশাস্য সফলতা অর্জন করেছেন।

 

টমাস আলভা এডিসন: ছোটবেলায় তিনি যখন স্কুলে পড়তেন তখন তিনি খুবই দুর্বল  প্রকৃতির ছাত্র ছিলেন এবং তার শিক্ষকরা তার সম্পর্কে বলতেন তাকে দিয়ে পড়ালেখা হবে না। একদিন তার মা কে ডেকে এনে তার স্কুলের শিক্ষকরা তার মায়ের হাতে একটি চিঠি দিলো যেখানে লেখা ছিল আপনার ছেলে খুবই দুর্বল প্রকৃতির ছাত্র তাকে আমরা আর এই স্কুলে রাখতে পারবো না সেদিন তার মা খুবই কষ্ট পেয়েছিলেন এবং এডিসন ক বলেছিলেন তুমি খুবই মেধাবী। আর এই মহান বিজ্ঞানী পরবর্তীতে  আবিষ্কার করেছিলেন গ্রামোফোন,দীর্গস্থায়ী বৈদ্যুতিক বাতি,ভিডিও ক্যামেরা সহ আর ও অনেক যন্ত্র। পরবর্তীতে তিনি তার নামের পাশে যোগ করেছিলেন এক হাজারের ও বেশি আবিষ্কারের  পেটেন্ট।

 

উইস্টন চার্চিল:  তিনি একজন রাজনীতিবিদ ছিলেন তার মতাদর্শগত বিরোধের কারণে তিনি তার পার্টি হতে ১৯২৯-১৯৩৯ সাল পর্যন্ত ১০ বছর বিচ্ছিন্ন ছিলেন। তার এই করুন পরিস্থিতি থেকে নিজেকে নিয়ে গেছেন এক অনন্য উচ্চতায় ১৯৪০ সালে তিনি ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী পদে নিযুক্ত হন।

 

স্যার আইজ্যাক নিউটন: ছোটবেলায় তার মা তাকে স্কুলে যাওয়া থেকে বিরত রেখে তাকে তাদের  পারিবারিক ফার্মের দায়িত্ব দেন। এই দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে তিনি শোচনীয়ভাবে ব্যার্থ হওয়ার পর আবার পড়ালেখা করার সুযোগ পান। পরে তিনিই  পদার্থবিজ্ঞান,জ্যোতির্বিজ্ঞান,গণিতসহ বিভিন্ন শাখায় সফলতা লাভ করেন। তাকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট বিজ্ঞানীদের একজন হিসেবে গণ্য করা হয়।

 

ওয়াল্ট ডিজনি: তিনি তার জীবনের প্রথম দিকে একটি নিউজ পেপারে চাকরি করতেন। কিছুদিন পর তার কল্পনাশক্তি এবং আইডিয়ার অভাব থাকার কারণে তিনি চাকরিচ্যুত হয়েছিলেন। আর পরবর্তীতে  তিনিই হয়েছিলেন বিখ্যাত মার্কিন চলচ্চিত্র প্রযোজক,কাহিনীকার ও এনিমেটর। এনিমেশন  তার হাত দিয়েই যাত্রা শুরু করে।

 

জে কে রাউলিং: তিনি যখন প্রথম উপন্যাস লেখা শুরু করেছিলেন “হ্যারি পটার” তখন তিনি একজন সিংগেল মম হিসেবে কাজ করে জীবন যাপন করতেন। পরবর্তীতে এই “হ্যারি পটার” উপন্যাস এর জন্য তিনি বিলিয়ন ডলারের মালিক হয়েছিলেন।

 

হ্যারিসন ফোর্ড: হ্যারিসন যখন প্রথম মুভিতে অভিনয় করেছিলেন তখন তার অভিনয় দেখে একজন সম্পাদক বলেছিলেন হ্যারিসন কখনো মুভিতে সফল হতে পারবে না। আর সেই হ্যারিসন আজকে “ইন্ডিয়ানা জোনস” এবং “ষ্টার ওয়ার্স” খ্যাত বিখ্যাত হলিউড অভিনেতা হ্যারিসন ফোর্ড নামে পরিচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *